HONOURABLE PRESIDENT VISITED SWARNADEEP

ঢাকা, ২৪ মার্চ ২০১৮ ঃ মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ আজ শনিবার (২৪-৩-২০১৮) নোয়াখালী জেলার স্বর্ণদীপ (জাহাজ্জ্যার চর) পরিদর্শন করেন । তিনি সেখানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে এবং সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মাণাধীন ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন এবং ১টি নারিকেল গাছের চারা রোপণ করেন । ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে এর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হবে।

এর আগে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি স্বর্ণদ্বীপে এসে পৌছলে তাঁকে স্বাগত জানান সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক (General Abu Belal Muhammad Shafiul Huq) । এ সময় রাষ্ট্রপতিকে স্বর্র্ণদ্বীপের ব্রিফিং প্রদান করা হয় ।

পরে মহামান্য রাষ্ট্রপতি স্বর্ণদ্বীপে সেনাবাহিনী পরিচালিত মিলিটারী ফার্ম এবং সেনাবাহিনীর পরিকল্পিত বণায়নের অংশ নারিকেল বাগান পরিদর্শন করেন । পরিদর্শনশেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এই দ্বীপের আয়তন প্রায় সিংগাপুরের সমান। পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা হলে এটি বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য সম্ভাবনাময় এলাকা হিসাবে গড়ে উঠবে। এছাড়াও, দ্বীপটিকে সেনাবাহিনীর জন্য ১টি আদর্শ প্রশিক্ষণ এলাকা হিসাবে গড়ে তোলা হবে । মহামান্য রাষ্ট্রপতি ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠা স্বর্ণদ্বীপের ম্যানুভার প্রশিক্ষণ এলাকার সুপরিকল্পিত ব্যবহার দেখে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং স্বর্ণদ্বীপের প্রশিক্ষণ সুবিধা সেনাবাহিনীর দক্ষতা বৃদ্ধিতে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সাল থেকে স্বর্ণদ্বীপ-এ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী উপকূলীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা অবস্থার উন্নতি, সামাজিক বনায়ন কর্মসূচী এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সামরিক প্রশিক্ষণ পরিচালনার দায়িত্ব সফলতার সাথে পালন করছে। ইতোমধ্যে স্বর্ণদ্বীপে গড়ে উঠেছে দুটি মাল্টিপারপাস সাইক্লোন শেল্টার এবং তৃতীয় সাইক্লোন শেল্টারের কাজ চলমান রয়েছে। সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে পরিকল্পিত বনায়ন, উন্নত প্রজাতির নারিকেল বাগান, মিলিটারি ফার্ম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট সুবিধা, স্থানীয় জনগণের কর্মসংস্থান ও চিকিৎসা সেবা প্রদান ইত্যাদি নিশ্চিত করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে জেনারেটরের পাশাপাশি ১ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মহামান্য রাষ্ট্রপতি সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে স্বর্ণদ্বীপ-এর অবকাঠামোগত এবং আর্থসামাজিক উন্নয়নমূলক সকল কর্মকান্ডের ভূঁয়সী প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে, মন্ত্রী পরিষদ সদস্য, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ (Admiral Nizamuddin Ahmed)এবং সংসদ সদস্যবৃন্দ, প্রাক্তন সেনা বাহিনী প্রধানগণ, সামরিক ও অসামরিক উধর্¡তন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।